ছোটবেলায় আম গাছের ডাল ভেঙে পড়ে যাওয়ার তিক্ত অভিজ্ঞতা।

in আমার বাংলা ব্লগlast month (edited)
আস-সালামু আলাইকুম

প্রিয় আমার বাংলা কমিউনিটির ভাইবোন বন্ধুরা,

আশা করি আপনারা সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন আমি আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহর রহমতে ভালো আছি।

আজকে আমি আপনাদের মাঝে নিয়ে চলে আসলাম আরও একটি নতুন পোস্ট। এই পোস্টটি গতকালকে করার ইচ্ছা ছিলো। কিন্তু গতকালকে সারা দিন তেমন কোনো সুযোগ পাইনি। রাতে পোস্ট করা হয়। কিন্তু আপুরা যেহেতু আমাদের বাড়িতে এসেছে তাই রাতে তাদের সাথে একটু সময় কাটাতে গিয়ে সবশেষে দেখি ১১ টা বেজে গেছে। তখন চাইলে পোস্ট করা যেত কিন্তু দেখলাম শরীলে অতটা এনার্জি পাচ্ছি না। তাই ভাবলাম এখন ঘুমিয়ে পড়ে সকালবেলায় পোস্ট করব। তো সেই ভাবনা অনুযায়ী বসে বললাম পোস্ট করার জন্য। আর আজকের পোস্টে আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব ছোটবেলায় আম গাছের ডাল ভেঙে পড়ে যাওয়ার তিক্ত অভিজ্ঞতা। তো চলুন আর বেশি দেরি না করে মূল বিষয়ে আসা যাক।

ছোটবেলায় গাছে উঠতে আমার অনেক ভালো লাগতো। আর উঠতামও অনেক অনেক গাছে। আর সেই সময় খুব ক্রেজিভাবেই গাছে উঠতাম বলতে পারেন। কারণ আমার যতটুকু মনে আছে আমাদের বাড়িতে থাকা আম গাছের এতটা আগায় যেতাম যেটা এখন ভাবলেও ভয় করে। অর্থাৎ টপ টাল গুলোতে খুব বেশি দূরে যেতাম না তবে নিচে যে ডালগুলো থাকতো সেই ডালগুলোর একদম লাস্ট মাথা পর্যন্ত চলে যেতাম। অর্থাৎ এতটাই দূরে যেতাম যে লাস্টে আর পা দেয়ার মত কোনো ডাল থাকতো না। লাস্টের ডালগুলোর সাথে কোনরকম ঝুলে থাকতাম। বাইরে থেকে এই দৃশ্য দেখলেই যে কেউ বলে ফেলতো পড়ে যাবে। আর ডালগুলো এতটাও নিচে না যে পড়লে কোনো ক্ষতি হতো না। কিন্তু কেনো জানি সেই সময় ভালো লাগতো।

একদিন আম্মু বাড়িতে ছিল না। আর আমরা ৩-৪ জন বন্ধু মিলে আমাদের বাড়িতে থাকা আম গাছটায় উঠে বসে ছিলাম। আমার যতটুকু মনে আছে সেই সময় আমার একটা বন্ধু আমার সাথে কম্পিটিশন করছিল কে কত দূরে উঠতে পারে এই নিয়ে। তো আমি যেহেতু এমনিতেই অনেক আগায় উঠতাম তাই আমার কোনো ভয় করছিল না। তাই উঠে গিয়েছিলাম অনেক দূর পর্যন্ত। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো অন্য দিন আমি গাছে একা থাকি। তাই গাছটা আমার ওজন সহ্য করতে পারতো। তবে সেই দিন আমি যে ডালে উঠেছিলাম সেই ডালে আরেকজন থাকার কারণে ডালটি আর ওজন সহ্য করতে পারে। তাই ডালটির একদম শেষের দিকে যাওয়ার আগেই ভেঙে গিয়েছিল।

ডালটি ভেঙে যাওয়ার পর কিছুক্ষণের জন্য কিছুই বুঝতে পারছিলাম না কি হলো। তো এক পর্যায়ে দেখলাম ডালটা একদম নিচে পড়েনি। অর্থাৎ আম গাছের পাশেই আরেকটা মেহগনি গাছ আছে যেটাতে ডালটি আটকে গেছিলো। তাই ডালের সাথে আমিও সেখানে আটকে ছিলাম। তবে বুঝতে পারলাম মাজার সাইডে আঘাত লেগেছে। যার কারণে বেশ কষ্ট হচ্ছিল। পরবর্তীতে দেখলাম লম্বা করে বেশ বড় জায়গা জুড়ে কেটে গিয়েছে। তবে আলহামদুলিল্লাহ ক্ষতটা গভীর ছিল না যার কারণে কোনো সেলাই দেওয়া লাগে। যতটুকু মনে আছে ওই ক্ষতটার জন্য কোনো কিছুই করেছিলাম না। আর সেই সময় আম্মু কে অনেক ভয় পেতাম যার কারণে প্রথম দিকে ক্ষতটা লুকিয়ে লুকিয়ে রাখছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে ঠিকই দেখে ফেলে। এখনো মনে আছে ক্ষতটার জন্য বেশ ভালোই কষ্ট করতে হয়েছিল। তো মুখে অনেক কথাই বললাম চলুন সেই ভাঙ্গা ডালের কিছু দৃশ্য দেখানো যাক।

IMG_20240603_083242-01.jpeg

IMG_20240604_062345-01.jpeg

তো উপরে আপনারা নিশ্চয়ই ভাঙা ডালির অংশ গুলো দেখতে পারছে। আর সেই সাথে দ্বিতীয় ফটোতে নিশ্চয়ই আম গাছের পাশে থাকা সেই মেহগনি গাছটা কেউ দেখতে পারছেন।

তো প্রিয় আমার বাংলা ব্লগ কমিউনিটির ভাই বোন বন্ধুরা, এই ছিল আমার আজকের পোস্ট। আপনাদের কি গাছের ডাল ভেঙে বা কোনো কারনে গাছ থেকে পড়ার তিক্ত অভিজ্ঞতা আছে ? থাকলে কমেন্টে জানাতে পারেন। তো যাই হোক আজকের মত এটুকুই। আবারো খুব শীঘ্রই নতুন কোনো পোস্ট নিয়ে হাজির হবো আপনাদের মাঝে ইনশা-আল্লাহ। ততক্ষণ সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন নিজের খেয়াল রাখবেন।

আল্লাহ হাফেজ
Sort:  

Upvoted! Thank you for supporting witness @jswit.

 last month 

ছোট্ট সময় গাছে উঠতে খুবই ভালো লাগতো। সমবয়সীদের সাথে আপনার মত আমরা অনেক প্রতিযোগিতা করেছি । এভাবে পড়ে যাওয়ার মতো অনেক ঘটনা ঘটেছে । অনেক দুঃসাহসিক ভাবে যেগুলো করে থাকতাম। সেই সময়ের অনুভূতিগুলো কতই না সুন্দর ছিল। এভাবে পড়ে গিয়ে কেটে যাওয়া ব্যাথা পাওয়া যেগুলো বাবা-মায়ের কাছ থেকে লুকিয়ে রাখতাম । সেই দিনগুলো মনে পড়লে ফিরিয়ে যেতে ইচ্ছে করে।

 last month 

জি ভাই, সেই সময় অনেক দুঃসাহস দেখাতাম। শরীরে অল্প পরিমাণ কেটে গেলে সেটা বাবা মায়ের কাছে লুকিয়ে রাখতাম যেন বকা না খেতে হয়। যাইহোক ধন্যবাদ ভাই সুন্দর মন্তব্যটি করার জন্য।

 last month 

গাছের ডাল ভেঙ্গে পরার বেশ ভালোই তিক্ত অভিজ্ঞতা রয়েছে আপনার। আসলে ছোটবেলায় মানুষ কত কিনা করে না বুঝে অথচ এখন সে সব ডাল দেখলে ভয় পান যে কিভাবে উঠতেন। আর এক বন্ধুর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে গাছের মগ ডালে উঠে আপনাদের ওজন সহ্য করতে না পেয়ে ভেঙ্গে পড়েছেন ভাগ্যিস নিচে পরেনি অন্য গাছে আটকে গেছিলেন। এত বছর পর ওই গাছের ভাঙ্গা অংশ এবং মেহগনি গাছটির গ্রাফি করে আমাদের সঙ্গে ভাগ করে নেয়ার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে।

 last month 

জি নিচে না পড়ার কারণে হয়তোবা একটু ক্ষতি কম হয়েছিল। যাইহোক ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দর মন্তব্যটি করার জন্য।

 last month 

আপনার পোস্টটি পড়ে ছোটবেলার স্মৃতি মনে পড়ে গেল। আমারও এমন তিক্ত একটি অভিজ্ঞতা রয়েছে। জাম গাছ উঠে জামা পড়ার সময়, ডাল ভেঙে পড়ে হাতের মধ্যে ক্ষত হয়ে গিয়েছিল। সেটা আমি লুকিয়ে লুকিয়ে রেখেছি কাউকে দেখতে দেই নাই।

 last month 

আসলে ছোটবেলায় ভয় পাওয়ার কারণে অনেক কিছুই লুকিয়ে রাখছে যেন বকা না খেতে হয়।

 last month 

গাছের ডাল মোটা না হলে, এমনিতেই একজন গাছের ডালে উঠলে ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে এক ডালে দুইজন উঠলে সেটা যে ভেঙে যাবে, এটাই তো স্বাভাবিক। তবে আপনাদের ভাগ্য ভালো যে, ডালটা ভেঙে মেহগনি গাছের সাথে আটকে গেছিলো, সেটা না হয়ে যদি নিচে পড়তেন সরাসরি তাহলে হয়তো আরো বড় কোন সমস্যা হতে পারতো। তবে আপনার যে বন্ধু ছিল সাথে তার কি অবস্থা হয়েছিল ভাই....?

 last month 

আসলে যেখান থেকে ডালটা ভেঙে গিয়েছে ও ঠিক সেই জায়গায় ছিলো। তার জন্য ও খুব দ্রুত সেখান থেকে সরে যেতে পেরেছিল, যার কারণে তার কিছুই হয়নি।

 last month 

আমার জীবনে আমি কখনোই গাছে উঠিনি। কিন্তু আপনি তো দেখছি বেশ ভালোই গাছে উঠতে পারতেন। তবে সেদিন আপনার দুর্ভাগ্য ছিলো যে একই ডালে আপনার বন্ধুও ছিলো। মূলত কম্পিটিশনের জন্যই এমনটা হয়েছিল। তবুও ততোটা ব্যথা পাননি এটাই অনেক। যাইহোক সেই ভাঙ্গা ডাল এখনো সেই অবস্থায় রয়েছে? মানে এতো বছরেও গাছের কোনো পরিবর্তন হয়নি।

 last month 

ভাগ্যিস আম গাছের সাথে একটি মেহগনি গাছ ও ছিলো! না হলে তো খবর ই ছিলো ভাই!! আসলে গাছে চড়াও একটা নেশার মতোই! আমের সীজনে আম গাছে চড়া তো খুব সাধারণ বিষয়। তবে সেদিন যেহেতু আন্টিও ছিলো না বাসায়, শুধু আপনার বন্ধুরা মিলে কম্পিটিশন করতে গিয়ে যদি আরো ভালো -মন্দ কিছু একটা হয়ে যেতো, রক্ষে ছিলো না! তাই সবসময় সাবধানে থাকার চেষ্টা করাই ভালো।

Coin Marketplace

STEEM 0.19
TRX 0.13
JST 0.030
BTC 63595.77
ETH 3415.98
USDT 1.00
SBD 2.49