কাজ।

আশাকরি " আমার বাংলা ব্লগ " পরিবারের সবাই ভালো আছেন। আশাকরি মহান সৃষ্টিকর্তার কৃপায় আপনারা সবাই সুস্থ আছেন। মহান সৃষ্টিকর্তা এবং আপনাদের আশীর্বাদে আমিও সুস্থ আছি। আজ আপনি আপনাদের সাথে কাজ সম্পর্কে একটি জেনারেল রাইটিং পোস্ট করলাম।


image.png



লিংক

আসলে আমাদের এই পৃথিবীতে জন্ম হওয়ার কিছুদিন পর থেকে আমরা বাইরের পরিবেশটাকে একটু সামান্য বুঝতে শুরু করি এবং যত বড় হই ততই এই পৃথিবীর সকল কাজকর্ম এবং সকল প্রতিকূলতা আস্তে আস্তে বুঝে উঠতে শুরু করি। একটা মানুষ তার জন্ম ভেদে অর্থাৎ সে নিম্নবিত্ত পরিবারে, না মধ্যবিত্ত পরিবারে, না উচ্চবিত্ত পরিবারের জন্মগ্রহণ করে তার উপর ভিত্তি করে তার জীবনের পরিশ্রম শুরু হয়। অর্থাৎ সে যদি কোন গরীব পরিবারে জন্মগ্রহণ করে তাহলে তার জীবনের সংগ্রামটি খুব অল্প বয়স থেকেই শুরু হয়ে যায়।


আসলে গরীব পরিবারের লোকেদের তার সংসার চালানোর মতো ক্ষমতা থাকে না। তাই তো সেই পরিবারের সন্তানেরা যখন একটু ভালো-মন্দ বুঝে উঠতে শুরু করে তখন তারাও তাদের পিতা-মাতার সঙ্গে বাইরে কাজ করতে বের হয়। আসলে তারা এই পৃথিবীর সৌন্দর্য এক মুহূর্তের জন্য উপভোগ করতে পারে না। কারণ তাদের বাল্যকালটা যায় কর্মে এবং যৌবনকালটা যায় কর্মে এবং শেষ জীবনটাও কর্মের ভিতর কেটে যায়। কারণ তারা তাদের জীবনের উন্নতির জন্য কখনো একটু বিশ্রাম নিতে সময় পায়না।


আসলে এই পৃথিবীতে মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তানেরা অনেকদূর পড়াশোনা করতে পারে এবং সামান্য চাকরি করে তারাও তাদের জীবনকে চালাতে পারে। আসলে তারাও কিন্তু ছোটবেলা থেকে পরিশ্রম করে কিন্তু সেই পরিশ্রমটা এই নিম্নবিত্ত শ্রেণীর লোকেদের মত নয়। তারা কিন্তু পড়াশোনা করতে পারে এবং তারাও একটু ভালো শৈশব কাটাতে পারে। এছাড়াও আমাদের ছোটবেলা থেকে সব সময় চিন্তা ভাবনা করতে হয় যে আমাদের মাতা পিতারা এত কাজ করছে তাই আমরাও ভবিষ্যতে বড় হয়ে কঠোর পরিশ্রম করে নিজেদের মা-বাবার দুঃখ কষ্ট দূর করে দেবো।

আসলে এই দুই শ্রেণীর লোকেদের জীবনে শৈশব কাল থেকে তাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। কিন্তু যারা এই সমাজের উচ্চবিত্ত পরিবারের লোক তারা কিন্তু শৈশবকালে তেমন একটা তো দূরের কথা কোন পরিশ্রম করে না। তাদের শৈশবকালটা পুরোটাই আনন্দ উল্লাসে কেটে যায়। কারণ তাদের পরিবারের না থাকে কোন অভাব এবং না থাকে কোন দুঃখ। কারণ এই পৃথিবীতে যাদের কাছে প্রচুর অর্থ রয়েছে তাদের জীবনে আর কোন কিছুর প্রয়োজন হয় না। তাই এইসব পরিবারের সন্তানেরা খুব আদর যত্নের ভিতর দিয়ে বেড়ে ওঠে।

আসলে যতই জীবনে বাঁধা আসুক না কেন এইসব উচ্চবিত্ত পরিবারের মা-বাবারা তাদের সন্তানদেরকে সবসময় আগলে রাখে এবং তাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ তারা নিজেরাই তৈরি করে দেয়। কারণ মা-বাবা যদি কোন ভালো একটা কিছু করে যেতে পারে তাহলে পরবর্তীতে তাদের সন্তানেরা সেই একই জিনিস পরিচালনা করে যেতে পারবে। কিন্তু বাকি দুই পরিবারের মধ্যে জীবনে অল্প সময়ে বেশি অর্থ উপার্জন করা অনেক কষ্টের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। যদিও তারা সব সময় কঠোর পরিশ্রম করে। আসলে এই জীবনে তাদেরকে পুরোটা জীবন পরিশ্রম করে যেতে হয়। আর এই কাজের মধ্যে আমাদের জীবনটা শেষ হয়ে যায়।



আশাকরি আপনাদের সবার খুব ভালো লেগেছে আজকের পোস্টটি । ভালো লাগলে অবশ্যই কমেন্ট করতে ভুলবেন না।


আজ এই পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। দেখা হবে পরবর্তী পোস্টে।

Sort:  
 last month 

খুব সুন্দর একটা বিষয় নিয়ে পোস্ট শেয়ার করেছেন। আসলে এমন দুই ছেলে মধ্যে আমিও এক শ্রেণীতে মানুষ যা ছোট থেকেই বিভিন্ন পারিবারিক কাজে লিপ্ত। কারণ জন্মের পর থেকে বুদ্ধি জ্ঞান হয়ে লক্ষ্য করে আসছে আমার আব্বা অসুস্থ। এজন্য হাসি উল্লাসের সুযোগ পায় নাই জীবনে সেই কঠোর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে লেখাপড়া সম্পন্ন করেছি এখনই মিশেই। তবে জানো কাজ কখনো পিছু ছাড়ে নাই। যাই হোক যারা কাজের লিপ্ত তাদের শরীর ভালো থাকে মন মানসিকতা ফ্রেশ থাকে।

Coin Marketplace

STEEM 0.19
TRX 0.12
JST 0.027
BTC 60277.41
ETH 3351.71
USDT 1.00
SBD 2.42