রেনডম ফটোগ্রাফি পোস্ট।

in আমার বাংলা ব্লগ2 months ago

কেমন আছেন আমার বাংলা ব্লগের বন্ধুরা? আমি ভালো আছি। আশাকরি আপনারা ও ভালো আছেন।


কয়েকদিন আগে একটি কাজে ঢাকা এসেছিলাম। সাধারণত কোন কাজ ছাড়া আমার এমনিতেই ঢাকা আসা হয়না। আমার আম্মা বিদেশ থেকে দেশে ফিরেছে। এজন্য তাকে নেয়ার জন্যই এবার ঢাকা আসা। এ কয়দিনে খুব বেশি একটা ঘোরাফেরা করা হয়নি। তারপরও যতটুকু ঘোরাফেরা হয়েছে তার ভিতর আমি বেশ কিছু ছবি তুলেছি। ঢাকা আসলে এমন একটা জায়গা যেখানে ছবি তোলার প্রচুর বিষয়বস্তু রয়েছে। তবে আমি গত কয়েকদিন যে সমস্ত জায়গায় ঘোরা ফেরা করেছি সেগুলো তুলনামূলক কম কোলাহলপূর্ন জায়গা। তবে এবার খুব বেশি ছবি তোলা হয়নি।

আমি এবার যে ছবিগুলো তুলেছি তার বেশিরভাগই দুটি জায়গার ছবি। একটি হচ্ছে হাতিরঝিল অন্যটি ধানমন্ডি লেক। এই জায়গা দুটি আমার কাছে খুবই পছন্দ হয়েছে। নিরিবিলি সময় কাটানোর জন্য বেশ ভালো জায়গাদুটি। এ জায়গা দুটির যে বৈশিষ্ট্য আমার কাছে সবচাইতে ভালো লেগেছে সেটা হচ্ছে সবুজ প্রকৃতির ছোঁয়া। ঢাকায় সবুজের ছোঁয়া প্রায় দেখাই যায় না। কিন্তু এই জায়গাদুটিতে প্রচুর গাছপালা রয়েছে। যার ফলে গাছের ছায়ায় পুরো জায়গাগুলি ছায়া মন্ডিত হয়ে থাকে। চলুন আজকে আপনাদের সাথে আমি আমার তোলা কিছু ছবি ভাগ করে নেবো।

প্রথম আলোকচিত্র

IMG_20220629_192417.jpg

এই ছবিটি ধানমন্ডি লেক থেকে তোলা হয়েছে। ধানমন্ডি লেকে যখন আমরা পৌঁছেছি তখন দেখলাম একটি ফোয়ারা থেকে পানি ছড়াচ্ছে। আমরা যখন ঘুরে ফোয়ারাটির উল্টো দিকে পৌঁছেছি হঠাৎ করে তাকিয়ে দেখি ফোয়ারার পানির ধারায় রংধনুর রং খেলা করছে। সকলে ছবি তোলা শুরু করলে তাদের দেখা দেখি আমিও কয়েকটি ছবি তুলে নিলাম। অনেকদিন পর রংধনু দেখলাম তাই দেখে বেশ ভালো লাগছিলো।

দ্বিতীয় আলোকচিত্র

IMG_20220629_192347.jpg

সেদিন উত্তরা দিয়া বাড়ি গিয়েছিলাম। এই জায়গাটির নাম আমি অনেক শুনেছি। কিন্তু কখনো সেখানে যাওয়া হয়নি। আমাদের গাড়ির ড্রাইভার আমাদেরকে পরামর্শ দিল সেখান থেকে ঘুরে আসতে। কারণ সেখান থেকে নাকি বিমানের ওঠানামা খুব কাছ থেকে দেখা যায়। আমি প্রথমে তার কথা খুব একটা বিশ্বাস করিনি। পরে অবশ্য সেখানে পৌঁছানোর পর বিমান ল্যান্ড করা দেখতে পেয়েছি খুব কাছ থেকে। যদিও এই ছবিতে বিমানটি দেখে মনে হচ্ছে অনেক দূরে। কিন্তু আমরা বিমানের ল্যান্ড করার কিছু ভিডিও করেছি যেগুলি দেখলে আপনারা বুঝতে পারতেন কত কাছ থেকে দেখা যায়। সেখানে দেখলাম প্রচুর লোকজন ঘোরাফেরা করতে এসেছে।

তৃতীয় আলোকচিত্র

IMG_20220629_192301.jpg

এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে হাতিরঝিলে চলমান একটি ওয়াটার বাস। যেটি এখন ঢাকার এই অঞ্চলের মানুষের স্বস্তির একটা জায়গায় পরিণত হয়েছে। ঢাকা শহরের পাবলিক ট্রান্সপোর্টে চড়ার অভিজ্ঞতা ভয়াবহ খারাপ। সেই তুলনায় ওয়াটার বাস গুলিকে স্বপ্নের পরিবহন বলতে হবে।

চতুর্থ আলোকচিত্র

IMG_20220629_192221.jpg

গোধূলি লগ্নের ছবি। আমি যেখানেই যাই সুযোগ পেলে এই সময়ে সূর্যের ছবি তোলার চেষ্টা করি। কেন জানি আমার কাছে সবসময়ই এই ধরনের ছবি তুলতে ভালো লাগে।

পঞ্চম আলোকচিত্র

IMG_20220629_192124.jpg

হাতিরঝিল সংলগ্ন কিছু স্থাপনা। এই বিল্ডিং গুলি দেখলে আমার মনে হয় যদি এখানে থাকতে পারতাম। তাহলে সব সময় হাতিরঝিলের সৌন্দর্য দেখতে পেতাম। যদিও এই সমস্ত স্থাপনাগুলো সমাজের একদম উঁচুশ্রেণীর লোকজনের জন্য। এই সমস্ত জায়গায় যে সমস্ত ফ্ল্যাট বিক্রি হয় সেগুলোর দাম আকাশছোঁয়া। যার ফলে সেগুলো সাধারণের নাগালের বাইরে।

ষষ্ঠ আলোকচিত্র

IMG_20220629_191953.jpg

হাতিরঝিলের ভেতর অবস্থিত একটি জায়গা। এ জায়গাটি কে দূর থেকে দেখলে একটি দ্বীপের মতো মনে হবে। এ জায়গাটি চারদিক থেকে পানি দ্বারা বেষ্টিত। কেন হাতিরঝিলের ভেতর এরকম একটি জায়গা রয়েছে সেটি আমার কাছে দুর্বোধ্য মনে হয়। হয়তো এর পেছনে কোনো কারণ থাকতে পারে যেটা আমার জানা নেই।

সপ্তম আলোকচিত্র

IMG_20220629_191849.jpg

এই ছবিতে একটি স্টেজ এবং গ্যালারি দেখা যাচ্ছে। এটা হাতিরঝিলের একটি অংশে তৈরি করা। এখানে বিভিন্ন রকমের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। জায়গাটি আমার কাছে অনুষ্ঠানের জন্য একদম পারফেক্ট মনে হয়েছে। তবে এ জায়গায় অনুষ্ঠান করতে হলে সবচাইতে ভালো সময় হচ্ছে রাতের বেলা।

অষ্টম আলোকচিত্র

IMG_20220629_191758.jpg

হাতিরঝিলের পাড় দিয়ে সবুজ গাছের সারি। এই গাছগুলোর জন্য হাতিরঝিল প্রজেক্টটাকে দেখতে আরও বেশি ভালো লাগে। পুরো হাতিরঝিল গাছের ছায়ায় ঢেকে আছে। যার ফলে বাইরে যখন প্রচন্ড গরম থাকে তখন মানুষ এখানে আসে দু'দণ্ড জিরিয়ে নেয়ার জন্য।

নবম আলোকচিত্র

IMG_20220629_191718.jpg

এই ছবিতে হাতিরঝিলের চমৎকার একটি দৃশ্য ফুটে উঠেছে সেদিন যখন ওয়াটার বাসে করে যাচ্ছিলাম তখন এই ছবিটি তোলা। বাইরের দিকে তাকিয়েই মনে হয়েছিল এখান থেকে ছবি তুললে ছবিটি ভালো আসবে।

দশম আলোকচিত্র

IMG_20220629_191643.jpg

এটা গুলশান ১ থেকে তোলা হাতিরঝিলের আরেকটি ছবি। আমি যেখানে দাঁড়িয়েছিলাম সামনের দিকে তাকিয়ে দেখি চমৎকার একটা ভিউ পাওয়া যাচ্ছে হাতিরঝিলের। দৃশ্যটি দেখেই আর ছবি তোলার লোভ সামলাতে পারলাম না। দৃশ্যটি দেখেই মনে হচ্ছিল এই ছবিটি অত্যন্ত ভালো হবে।


আজকের মত এখানেই শেষ করছি। পরবর্তীতে আপনাদের সাথে দেখা হবে অন্য কোন নতুন লেখা নিয়ে। সে পর্যন্ত সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন।


ফটোগ্রাফির জন্য ব্যবহৃত ডিভাইসহুয়াই নোভা 2i
ফটোগ্রাফার@rupok
স্থানহাতিরঝিল, ধানমন্ডি লেক

logo.png

Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP500 SP1000 SP2000 SP5000 SP

Heroism_3rd.png

standard_Discord_Zip.gif


🇧🇩🇧🇩ধন্যবাদ🇧🇩🇧🇩


@rupok

Sort:  
 2 months ago 

প্রথম ছবিটা একদম মাথা নষ্ট করে দিয়েছে রূপক ভাই। এরকম একটা দৃশ্য সামনে থেকে দেখতে পেলে নিজের চোখকেই বিশ্বাস করা যাবেনা। আর হাতিরঝিলের প্রতিটি ছবি বেশ মনোরম লাগছিল। আমি বাইক নিয়ে ঘুরেছি হাতিরঝিল। কিন্তু হেঁটে হেঁটে কিছুটা সময় সেখানে কাটানো হয়নি। ইচ্ছা আছে একদিন বিকেলবেলা টা সেখানে কাটাবো। আপনার ছবিগুলো দেখে যাওয়ার চাহিদাটা আরো বেড়ে গেল। ধন্যবাদ ভাই।

 last month 

প্রথম ছবিটা তুলতে পেরে আমার নিজের কাছেও অনেক ভালো লেগেছে। দীর্ঘদিন পর রংধনু দেখতে পেলাম। সেজন্যই ছবি তোলার লোভটা আর সামলাতে পারিনি।

 2 months ago 

ধানমন্ডি লেক এত অসাধারণ 😯, আপনার উপস্থাপন করা ফটোগ্রাফি গুলো দেখে প্রশংসা করার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি । ফটোগ্রাফি করতে আমার নিজেরও অনেক ভালো লাগে এবং আমার যখন মন খারাপ হয় তখন আমি আমার এলাকায় কিছু বিশেষ স্থানে গিয়ে ফটোগ্রাফি করি। খুবই চমৎকার একটি ফটোগ্রাফি পোস্ট আপনি আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন আপনার জন্য শুভকামনা এবং শ্রদ্ধা রইল।

 last month 

ধানমন্ডি লেকটা আসলেই সুন্দর একটি জায়গা। সময় পেলে একবার ঘুরে দেখবেন।

 2 months ago 

ভাই আপনি এত সুন্দর ফটোগ্রাফি করতে পারেন সেটা আমার আগে জানা ছিল না। তবে আজকের ফটোগ্রাফি গুলো আমার কাছে বেশি এসপেশালি মনে হচ্ছে। মনে হচ্ছে কোন পেশাদার ফটোগ্রাফারের তোলা ছবি। ধানমন্ডি লেক এবং হাতিরঝিলের প্রত্যেকটা ফটোগ্রাফি ছিল দারুণ কোনটা থেকে কোনটা কম নয়। এত সুন্দর ফটোগ্রাফি হল আমাদেরকে উপহার দেওয়ার জন্য শুভেচ্ছা রইল।

 last month 

আস্তে আস্তে ছবি তোলা শিখছি। আর পরিবেশ ভালো হলে ছবিগুলো এমনিতেই ভালো দেখায়।

 2 months ago 

অসাধারণ এবং মনমুগ্ধকর কিছু ফটোগ্রাফি আজকে আপনার মাধ্যমে দেখতে পেলাম ভাইয়া।প্রত্যেকটা ফটোগ্রাফি ছিল অসাধারণ। হাতিরঝিলের সুন্দর সুন্দর ফটোগ্রাফি আজকে আপনার মাধ্যমে দেখতে পেলাম। ফটোগ্রাফি গুলো দেখে খুবই ভাল লাগছে। এত সুন্দর সুন্দর ফটোগ্রাফি আমাদের মাঝে এত সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি ভাইয়া।

 last month 

ছবিগুলি যে আপনার পছন্দ হয়েছে এটা জেনে ভালো লাগলো। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

 last month 

আমার কাছে বরাবরই যেটা মনে হয় তা হচ্ছে ছবি তোলার জন্য সাবজেক্ট এর চাইতে দৃষ্টিভঙ্গি বেশি দরকার। অর্থাৎ সাবজেক্ট কে কিভাবে দেখছে সেটাই বড় কথা। ঢাকার শহর আমার কাছে খুবই অনাকর্ষণীয় একটি জায়গা। তা সত্ত্বেও অনেক ভালো কিছু ছবি তুলেছো তুমি। ধন্যবাদ

 last month 

তবে আমার কাছে অবশ্য ঢাকা শহরকে ছবি তোলার জন্য ভালো জায়গা মনে হয়। কারণ সেখানে চারপাশে এত রকমের বিষয় ছড়িয়ে আছে যে ইচ্ছা করলেই অনেক কিছুর ছবি তোলা সম্ভব।

 last month 

অসাধারণ দক্ষতা ফুটিয়ে তুলেছেন বিশেষ করে ধানমন্ডি লেকে যে ছবিটা সেটা অতুলনীয় প্রশংসার নিদর্শনে রং এর বিচ্ছুরণ ঘটাচ্ছে। সব মিলিয়ে আপনার উপস্থাপনা ও ফটোগ্রাফি দেখে মুগ্ধ না হয়ে এবং একটি মন্তব্য না করে যাওয়াটা কঠিন ব্যাপার। সব সময় শুভকামনা ভাইয়া।

 last month 

রংধনুর ওই ছবিটা হঠাৎ মিলে যাওয়া। কাকতালীয় ঘটনাই বলতে হবে।

 last month 

মানুষের জীবনটাও ঠিক এরকম ভাইয়া, অদ্ভুত ও কাকতালীয়ভাবে জীবনের গতির পরিবর্তন হয়ে থাকে। কারো জীবনে কাকতালীয়ভাবে এতটাই পরিবর্তন হয়ে যায় যে, তার কাছেও অদ্ভুত মনে হয়। তবে সেগুলো ভাগ্যবান লোকদের হয়ে থাকে। আমার মনে হচ্ছে আপনিও ভাগ্যবানদের দলে অন্তর্ভুক্ত। তাছাড়া আপনার অসম্ভব দক্ষতাও রয়েছে। দুই এ মিলে আপনার জীবয়ে বয়ে নিয়ে আসুক অনাবিল, সুখ-সমৃদ্ধি ও শান্তির ছায়া।

 last month 

মাশাআল্লাহ ভাইয়া সবগুলো ছবি অসাধারণ হয়েছে। ধানমন্ডি লেকের ছবিটি একদম ইউনিক হয়েছে। হাতিরঝিলে ছবি গুলো বেশ দারুন হয়েছে। সবগুলো ছবি সাথে উপস্থাপনা খুব সুন্দর ছিল।

 last month 

ধানমন্ডি লেক এবং হাতিরঝিল দুটো জায়গায় সুন্দর। সেজন্যই হয়তো ছবিগুলো একটু ভালো হয়েছে।

 last month 

অসাধারণ আপনি অনেক সুন্দর সুন্দর মন মুগ্ধকর কিছু ফটোগ্রাফি আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন। প্রতিটি ফটোগ্রাফি অনেক বেশি আকর্ষণীয় ছিল সুন্দর বর্ণনার মাধ্যমে আমাদের মাঝে ফটোগ্রাফি পোস্ট শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

 last month 

চোখ ধাঁধানো ফটোগ্রাফি করেছেন আপনি। গোধূলি লগ্নে আস্তে আস্তে সূর্য অস্ত যাওয়ার ফটোগ্রাফিটি আমার কাছে সবচাইতে বেশি ভালো লেগেছে। অসাধারণ একটি ফটোগ্রাফি পোস্ট উপহার আপনার অসংখ্য ধন্যবাদ।

Coin Marketplace

STEEM 0.27
TRX 0.07
JST 0.034
BTC 24339.44
ETH 1946.97
USDT 1.00
SBD 3.38