বছরের প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার অনুভূতি শেয়ার

in আমার বাংলা ব্লগ7 months ago

IMG_20220710_162626.jpg


বহুদিন বৃষ্টিতে ভেজা হয় না । এবছর আমাদের ভারতের পশ্চিমবঙ্গে তীব্র খরা চলছে । একটুও বৃষ্টি নেই । আষাঢ় মাস শেষ হতে চললো তাও বৃষ্টির দেখা নেই । ছিঁটে ফোঁটা কখনো কথনো মিনিট পাঁচেকের এক পশলা বৃষ্টি হয় মাঝে মধ্যে । তবে তাতে মাটিই ভেজে না ঠিকমতো ।

আজকেও তেমনি গুঁড়ি গুঁড়ি একটু বৃষ্টি নেমেছিল । এই একটু আগে । ইলশেগুঁড়ি বৃষ্টি যাকে বলে । আমি বেডে শুয়ে শুয়ে ভাবছিলাম আজকে কি পোস্ট করবো এমন সময়ে ভীষণ চেঁচামেচিতে ধড়মড়িয়ে বেড থেকে উঠে ব্যালকনিতে ছুটে গেলাম । চেঁচামেচিটা ওখান থেকেই আসছিলো ।

গিয়ে কি দেখতে পেলাম ? গিয়ে দেখলাম যে আমাদের টিনটিনবাবু ভীষণ হুল্লোড় জুড়ে দিয়েছে । বৃষ্টি পড়ছে । আর হাওয়ায় সেই বৃষ্টির রেণু এসে ভিজিয়ে দিচ্ছে পুরো ব্যালকনিটা । বৃষ্টির ছাঁট গায়ে লাগতেই ভীষণ ছটফটিয়ে উঠছে টিনটিনবাবু । সে বৃষ্টি ভীষণ লাইক করে । ঠিক আমার মতোই ।

পুরো ব্যালকনি জুড়ে নাচছে আর গান গাইছে । মাঝে মাঝে ভীষণ জোরে চেঁচিয়ে উঠছে - "বিট্টি বিট্টি " । দেখলাম গায়ে, মাথায় জল ঝরছে । হাত বাড়িয়ে একটু বৃষ্টির জল টাচ করলাম । মনটা ভীষণই হঠাৎ আনচান করে উঠলো । ভুলে গেলাম আমি অসুস্থ । ভয়ানক সর্দি, কাশি, মাথা ব্যাথা আমার । কোনো কিছুই আর আমাকে দমিয়ে রাখতে পারলো না ।

তাই, হঠাৎ টিনটিনকে পাঁজকোলা করে নিয়ে ছুটলাম ছাদে । আহা! কি যে শান্তি । ঝির ঝিরে ইলশেগুঁড়ি বৃষ্টি নেমেছে । শুরু করলাম বাপ ব্যাটা মিলে ছোটাছুটি , খুনসুটি । বিশাল ছাদ আমাদের । এ মাথা থেকে ও মাথা অব্দি ছোটাছুটি করতে থাকলাম আমরা দুজনে বৃষ্টিতে ভিজে ।

প্রায় কুড়ি মিনিট ধরে ভিজলাম দু'জনেই । কয়েকটি ছবি তুলেছি, এর মধ্যে টিনটিনের মা হাজির । তার বিশাল ধমকানিতে আমরা দু'জনে সুড়সুড় করে নিচে নেমে এলাম । আরেকটু সময় ধরে ভেজার খুব সাধ ছিল মনে । কিন্তু, তনুজার জন্য তা আর হলো না । মনের দুঃখ মনে চেপেই নিচে নেমে এলুম ।


IMG_20220710_162548.jpg

IMG_20220710_162557.jpg

IMG_20220710_162601.jpg

বৃষ্টিতে ভিজে ভিজে সেলফি

তারিখ : ১০ জুলাই ২০২২
সময় : বিকেল ৪ টা ১৫ মিনিট
স্থান : কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।


IMG_20220710_162626.jpg

IMG_20220710_162706.jpg

IMG_20220710_162708.jpg

বছরের প্রথম বৃষ্টিতে ভিজতে পেরে খুব খুশি আমাদের গোলটুবাবু

তারিখ : ১০ জুলাই ২০২২
সময় : বিকেল ৪ টা ১৫ মিনিট
স্থান : কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।


ক্যামেরা পরিচিতি : OnePlus
ক্যামেরা মডেল : EB2101
ফোকাল লেংথ : ৫ মিমিঃ


Sort:  

RME, Thank You for sharing Your insights...

Hi @rme,
my name is @ilnegro and I voted your post using steem-fanbase.com.

Come and visit Italy Community

 7 months ago 

দাদা ভালোবাসার এই শাসন না মেনে উপায় নেই। তবে সত্যি বলতে কি বৃষ্টিতে ভিজতে আপনার মত আমারও ভীষণ ভালো লাগে। ছোট বেলায় বৃষ্টি নামলেই ঘর থেকে বেরিয়ে পড়তাম ভিজবো বলে। তবে এখন বজ্রপাতের ভয়ে তেমন একটা বের হই না। আপনাদের ওদিকে এই ভরা বর্ষার সিজনেও বৃষ্টি হয়নি শুনে দুশ্চিন্তায় পরে গেলাম। মনে হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সব জায়গায় পড়তে শুরু করেছে। যাইহোক আমাদের এই পবিত্র আনন্দের দিনে টিনটিন বাবু, বৌদি এবং আপনার পুরো পরিবারের জন্য রইল অফুরন্ত ভালোবাসা। ঈদ মোবারক।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

গল্টু বাবুকে দেখে আমারও ইচ্ছে করছিল সব চিন্তা ঝেড়ে ফেলে যদি আপন মনে এভাবে বৃষ্টিতে ভিজতে পারতাম! আর আপনিও দাদা, শরীরের এই হাল তবু ছুটে গেছেন ভিজতে 🤪। আসলে বৃষ্টি জিনিসটাই এমন। বড্ড নেশা ধরিয়ে দেয়। খুব কাছে টানে। আমি শুধু দিদিভাই এর এক্সপ্রেশন এর কথা চিন্তা করছি , কেমন করে ঝেরেছে 😂😂। ভালোবাসার এই শাসন মানতেও অনেক মজা লাগে সত্যি 😊😊।

 7 months ago 

ছোট বেলার স্মৃতি মনে পরে গেল।মায়ের হাতে কত মার খেয়েছি এই বৃষ্টি তে ভেজার জন্য।

 7 months ago 

আহারে দাদা বৌদি নিয়ে একটু ভিজতেন।কি মজাই না হতো😉😉।তবে ঠিক হয়নি ঠান্ডায় ভুগছেন তারপর এমন।যাক সুস্থ থাকেন এই প্রত্যাশা করি।ধন্যবাদ

 7 months ago 

দাদা আমি লেভেল ওয়ানের ছাত্র। আমি আপনার অনেক গুলো পোস্ট পড়েছি। কিন্তু কমেন্ট করতে সাহস পাই না,যদি ভুল কিছু হয়ে যায়। কিন্তু আজ আপনি আর টিনটিন বাবুর বৃষ্টিতে ভিজতে দেখে,বিশেষ করে টিনটিন বাবু কে দেখে আমার ছোট বেলার কথা মনে পড়ে গেল। যখন বৃষ্টি হত এক,দুই,ঘন্টা ধরে হতো।আমি বন্ধুদের সাথে ফুটবল খেলতাম। জীবনে অনেক আনন্দ উপভোগ করেছি। আপনি, বৌদি এবং টিনটিন বাবুর প্রতি সুভ কামনা রইল।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

কিছুদিন আগে দাদা আমার এমন ভাবে ভেজার সৌভাগ্য হয়েছিল, তবে সেইবার হীরা আমাকে বেশ ঝাড়ি দিয়েছিল । তবে আপনাদের বাপ বেটার এমন মুহূর্ত দেখে আমারও মন আবার চাচ্ছে পুনরায় আরেকবার ভিজি । টিনটিন কে বেশ প্রাণবন্ত ও সুন্দর লাগছে ।

 7 months ago 

দাদা একেতো অসুস্থ, এরমধ্যে আবার বৃষ্টিতে ভিজলেন 😕 আবার বড় কিছু বাঁধিয়ে না ফেলেন। বৌদি ভালো কাজ করেছেন আপনাদের ছাদ থেকে নামিয়ে দিয়ে। যাক বেশ আনন্দ করেছে দেখলাম টিনটিন সোনা 🤗
দাদা সুস্থ থাকুন এই কামনা করছি 🤲

 7 months ago 

এবছর আমাদের ভারতের পশ্চিমবঙ্গে তীব্র খরা চলছে । একটুও বৃষ্টি নেই । আষাঢ় মাস শেষ হতে চললো তাও বৃষ্টির দেখা নেই ।

কোথাও বৃষ্টি নেই কোথাও বন্যা। বৃষ্টিতে ভিজতে আমার কাছে খুবই ভালো লাগে। আমিও অনেক দিন হয়ে গেল বৃষ্টি তে ভেজা হয়না। আপনারা বৃষ্টিতে ভিজে খুব ইনজয় করেছেন। বৃষ্টিতে ভিজলে তনুজার বৌদির মত আমার আম্মু খুব বকাবকি করে। ঠিক চিনতে বেশ উৎফুল্ল মনের মনে হচ্ছে।

 7 months ago 

বহুদিন বৃষ্টিতে ভেজা হয় না

ঠিক বলেছেন দাদা বহুদিন হয়ে গিয়েছে ভেজা হয় না কারণ এখন বৃষ্টিপাতের পরিমাণটা অনেকটাই কমে গিয়েছে। যখনই বৃষ্টি হয় তখনই মনের মধ্যে একটি ভয় চলে আসে যদি এখন বৃষ্টির পানিতে ভিজে তাহলে যদি জ্বর চলে আসে।

বছরের প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার সুন্দর কিছু মুহূর্ত আজকে আপনি আমাদের মাঝে ফটোগ্রাফির মাধ্যমে শেয়ার করেছেন দাদা। আপনার শেয়ার করা ফটোগ্রাফি গুলো দেখার পরে আমারও ভয় কে জয় করে বৃষ্টিতে ভিজতে ইচ্ছা হচ্ছে।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

বছরের প্রথম বৃষ্টিতে ভেজার অনূভুতি টা সত্যি আলাদা হয়ে থাকে। যদিও আমি নিজেও এইবছরে এক দিনও বৃষ্টিথে ভিজি নাই। টিনটিনের ব‍্যাপারটা শুনে বেশ ভালো লাগল। ও খুব উৎসাহের সঙ্গে চিৎকার করে বলছিল বৃট্টি বৃট্টি।। ওদের কাছে এইসম মূহুর্ত টা খুবই আনন্দের। তবে আবার খেয়াল রাইখেন বৃষ্টিতে ভিজে জ্বর যেন না বাঁধিয়ে নেয়।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

দাদা আপনাদের বাবা ছেলের কান্ড খানা পড়ে আমি
হাসতে হাসতে শেষ,, এই অসুস্থ শরীর নিয়ে ভিজলেন যাক তবে মন ভালো হলে সব ভালো। তবে শেষটা কিন্তু দারুন ছিল, বৌদির এন্ট্রি 😆

This post has been upvoted by @italygame witness curation trail


If you like our work and want to support us, please consider to approve our witness




CLICK HERE 👇

Come and visit Italy Community



 7 months ago 

সত্যি দাদা, এটা অসম্ভব অনুভূতির একটা বিষয়। বাস্তবতা বড়ই নির্মম আবার অদ্ভুতও বটে। দেখুন দুটো জিনিষে বেশ প্রশান্তি আসে হৃদয়ে একটা চোখ দিয়ে যখন অঝোড় ধারায় কান্না আসে আর দুই যখনো অবিশ্রান্ত বৃষ্টিতে ভিজে দেহ।

টিনটিন বাবুর বৃষ্টিতে হৈ হুল্লোর করার দৃশ্যগুলো সত্যি শৈশবকে মনে করিয়ে দিলো। কি দারুণ ছিলো শৈশবের বৃষ্টির সময় ভেজার মুহুর্তগুলো।

 7 months ago 

দাদা বৃষ্টি আপনার মত আমাদের সকলের খুব পছন্দ। প্রচন্ড খরার মাঝে হঠাৎ করে যখন বৃষ্টি আসে যেখানেই থাকি না কেন ইচ্ছা হয় কিছুক্ষন ভিজতে। কিন্তু দাদা আপনার এত অসুস্থতার মাঝে দীর্ঘ ২০ মিনিট ধরে ভেজাটা মনে হয় ঠিক হয়নি। যদিও কিছুক্ষণ বৃষ্টিতে ভিজে আপনি টিনটিন বাবুর মনে অনেক আনন্দ দিয়েছেন এবং নিজেও পেয়েছেন। যাক শেষ মুহূর্তে বৌদি এসে আপনাদের বৃষ্টিতে ভেজা বন্ধ করে দিয়েছে এটা কিন্তু আমি জেনে খুশি হয়েছি। তা না হলে নিশ্চিত আপনি আরো কিছুক্ষণ ভিজিয়ে আবার অসুস্থ হয়ে যেতেন। আশা করছি আমি সবকিছু কাটিয়ে উঠতে পারবেন।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

এবছর আমাদের ভারতের পশ্চিমবঙ্গে তীব্র খরা চলছে । একটুও বৃষ্টি নেই ।

সত্যিই দাদা,বৃষ্টির জন্য সবাই রীতিমতো প্রার্থনা করছে কিন্তু বৃষ্টির দেখা নেই।আর এখন বর্ষাকাল বলে মনেই হচ্ছে না ।বর্ষায় ভিজতে আমার ও ভালো লাগে।টিনটিন বাবুকে ভীষণ মিষ্টি দেখতে লাগছে, বেশ খুশি হয়েছে টিনটিন দেখেই বোঝা যাচ্ছে।অনেক ভালোবাসা রইলো বাবুর জন্য, ধন্যবাদ দাদা।

 7 months ago 

কি ভদ্র ছেলেরে বাবা। বইয়ের এক ধমকে সুড়সুড় করে নেমে চলে আসলো। বৌদির আরো আগে ধমক দেয়ার দরকার ছিল। জ্বর নিয়ে বিশ মিনিট ভিজেছেন।
আমারও খুব ইচ্ছা ছিল বৃষ্টিতে ভিজার। তা বৃষ্টিরই দেখা নেই ।

 7 months ago 

দাদা বৃষ্টিতে ভেজা কিন্তু সব বয়সে সহ্য হয় না। আগে সারাদিন বৃষ্টিতে খেলেছি কোন সমস্যা হয়নি। কিন্তু এখন বৃষ্টির একটি ফোটা মাথায় পড়লে সর্দি কাশি লেগে যায়।
এই ভরা মৌসুমে ও আপনার ওদিকে বৃষ্টি হয় না। আর আমাদের এদিকে বৃষ্টি হতে হতে বন্যা হয়ে গেছে। আপনার গোলটুবাবুর প্রতি আমার অনেক দোয়া ও ভালোবাসা ও স্নেহ রইল।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

দারুন মজা হলো দেখছি। শেষের ছবিটা দারুন লেগেছে হাতের মোশনের জন্য একটা হাত দুটো দেখতে পাচ্ছি। হিঃ হিঃ।

দাদা আমাদের দিকে বৃষ্টি নামক বস্তুটির দেখাই নেই। বাজে অবস্থা।

 7 months ago 

দাদা আপনি তো এই বছর প্রথমবারের মতো বৃষ্টিতে ভিজলেন। কিন্তু আমি মেসে থাকার ফলে ভেজার সুযোগ পাই নি। বাসায় এসেছি কয়েকদিন হলো, কিন্তু বৃষ্টির দেখা নেই। আপনাদের ভেজা দেখে আমারো ভিজতে ইচ্ছা করছে। খুব মজা করেছেন, শুভকামনা রইলো দাদাভাই।

 7 months ago 

বৃষ্টিতে ভিজতে ভালো লাগে মানলাম, তাই বলে এই অসুস্থ শরীর নিয়ে বিশ মিনিট বৃষ্টিতে ভিজবেন আপনার কি মাথা খারাপ? বৌদি ঠিকই করেছে। আপনাকে তো পেটানো উচিত ছিল। যাই হোক টিনটিন বৃষ্টিতে ভিজে আনন্দ পেয়েছে শুনে ভালো লাগলো।

 7 months ago 

আমিও বৃষ্টিতে ভিজতে খুবই পছন্দ করি। ইচ্ছা না থাকলেও কর্ম ব্যস্ততার মধ্যে ভেজা হয়ে যায়। অবশ্যই এ বছর আমাদের এখানে বৃষ্টি খুবই কম। তবে গত দিনের টিপটাপ বৃষ্টিতে ভিজে বর্তমান জ্বরে ভুগছি। তাই এই বিষয়ে একটু সাবধান থাকাটাই উচিত দাদা।

 7 months ago 

বাংলাদেশের পশিমাঞ্চল আমাদের জেলা মেহেরপুরেও এবার বৃষ্টির পরিমাণ মাত্রাতিরিক্ত কম । বৃষ্টিতে ভেজার ইচ্ছে হলেও ভেজা সম্ভব হয় না । আজ দুপুরেও গোসলের আগ দিয়ে বৃষ্টি নামলো । আমি রেডি হয়ে উঠানে নামতেই থেমে গেল । বাধ্য হয়ে গোসল সেরে নিলাম ।
তবে দাদা যত আনন্দই লাগুক বৃষ্টিতে ভেজা ঠিক হয়নি এই সময়ের সাধারণ অসুখ গুলোও মারাত্বক আকার নিতে দেরি করে না । আমি পুরপুরি বৌদিকে সমর্থন দিলাম ।
দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি ।

Thank You for sharing Your insights...

 7 months ago 

ওরে বাবা।।।। টিনটিন বাবু কত খুশি। বৃষ্টিতে ভিজতে সত্যিই দারুণ লাগে। টিনটিন বাবু ভীষণ মজা পাচ্ছে ওর হাসিটা দেখেই বোঝা যাচ্ছে। তবে আপনি বৌদিকে বেশ ভয় পান মনে হল। হেহেহে। 😆

 7 months ago 

এই খড়া রোদের মধ্যে বৃষ্টির পরশ পেলে মন্দ হয়না। তবে এখন সিজনটা তেমন ভালো যাচ্ছে না। সবার জ্বর সর্দি লেগেই আছে। বউদি ভালো কাজই করেছে আপনাদের ছাদ থেকে নামিয়ে 🤗। গোলটুবাবু বৃষ্টির পরশ উপভোগ করেছে যে দেখেই বুঝা যাচ্ছে

 7 months ago 

বৌদি বেশ ভালো একটি কাজ করেছে দাদা।তা না হলে আপনার তো অসুস্থতা বেড়েছেই সাথে টিনটিন এর ও হতো।

Coin Marketplace

STEEM 0.20
TRX 0.06
JST 0.028
BTC 23058.12
ETH 1598.10
USDT 1.00
SBD 2.55