ভিখারীর বিল্ডিং

আজকে আমি এসেছি আপনাদের সকলের সাথে একটি জেনারেল রাইটিং পোস্ট শেয়ার করতে। আমার লেখার মাধ্যমে আমার চিন্তা ভাবনা গুলো আপনাদের কাছে পৌঁছানোর লক্ষ্যে এই লেখাগুলো শেয়ার করা।

IMG_0378.jpeg

made by canva

আশা করছি যে আপনারা আপনাদের মূল্যবান মন্তব্যের মাধ্যমেই আমার এই লেখাটি সৌন্দর্য বৃদ্ধি করবেন এবং আপনাদের মতামত ব্যক্ত করবেন। আমি যদি কোনো কিছু ভুল বলে থাকি। তাহলে অবশ্যই আমাকে শুধরে দিতে ভুলবেন না।

অনেকেই হয়তো এই পোস্টের টাইটেলটি দেখে একটু হলেও অবাক হয়েছেন। কারণ এই ধরনের টাইটেল অনেকটা অবাস্তব। কারণ যে ভিখারী তার একটা বিল্ডিং থাকবে সেটা তো কখনোই সম্ভব হতে পারে না। কারণ ভিখারির মানে হচ্ছে সে মানুষের কাছ থেকে চেয়ে, ভিক্ষা করে এরপরে কোনোরকমে জীবন যাপন করে। এবং তার কোনো ঘর-বাড়ি ও নেই। সে যেখানেই থাকে সেখানে সেটাকেই তার ঘরবাড়ি বানিয়ে নেয়। আর সেই জায়গা থেকে আমি সেখানে লিখলাম যে ভিখারির বিল্ডিং যেটা আসলে অসম্ভব।

সাধারণভাবে দেখতে গেলে ব্যাপারটা কিন্তু এমনটাই হয় অর্থাৎ অসম্ভব ই বটে। কিন্তু যখন আমরা একটু ভালো করে ভেবে দেখবো কিংবা আজকালকার নিউজগুলো যদি একটু দেখি। তাহলে এই ব্যাপারটা একেবারেই পরিষ্কার হয়ে যায়।

আমি কয়েকদিন আগে আমার দেখা একটা ভিডিওর কথাই আপনাদেরকে বলি তাহলে আপনারা বুঝতে পারবেন। একটা লোক দেখলাম লাঠি নিয়ে বেশ রেগে মেগে একটা ভিখারির সামনে এসে দাঁড়িয়েছে এবং ভিখারিটাকে মারার মতো করছিলো। যদিও সে মারেনি। তখনই দেখলাম যে ভিখারিটি সোজা উঠে হেঁটে সামনের দিকে চলে গেলো। কিন্তু ততোক্ষণ এর আগ পর্যন্ত ভিখারিটির অবস্থান ছিলো, সে পানির মধ্যে উল্টো হয়ে শুয়েছিলো এবং হাত-পা ভাঙ্গার মতোন করে ভিক্ষা চাইছিলো।

এবং অনেকগুলো সার্ভেতে এটাই উঠে এসেছে যে, অনেকে ভিক্ষাবৃত্তি টাকে একটা পেশা হিসেবে মনে করে। কারণ এই পেশায় কোনো রকমের মেধা খাটাতে হয় না। এই পেশায় কোনো কাজকর্ম নেই এবং সবচেয়ে বড় কথা এই পেশায় কোনো ইনভেস্টমেন্ট নেই। কিন্তু একটু ভালো অ্যাক্টিং করতে পারলেই এই ব্যবসায় একেবারে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হওয়া যায়। এবং সত্যি সত্যিই অনেক ভিখারীর খোঁজখবর নিতে নিতে প্রশাসন এমন একটা পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়েছে যেখানে তারা দেখছে যে, সেই ভিখারির অনেক টাকা পয়সা রয়েছে।

তাহলে আপনারাই ভাবুন আমার পোস্টের টাইটেলটা কি আমি কিছু ভুল বলেছি? আসলেই ভিখারিদের অনেকের বিল্ডিং রয়েছে। যদিও আমি সবার কথা বলছি না। কারণ সবাই এ ধরনের খারাপ রাস্তা অবলম্বন করে না।
Sort:  
 last month 

আপনি যে ভিডিওর কথা বলছিলেন এই ভিডিওটা মনে হয় আমিও দেখেছি। এরকম দুই তিনটা ঘটনাই দেখেছি। কিছু কিছু ভিখারি রাস্তার ধারে কাদার মধ্যেও শুয়ে শুয়ে ভিক্ষে করে টাকা নেয়। কিন্তু যখন অন্য লোক লাঠি নিয়ে এসে তাড়া করে তখন দেখা যায় সে নিজে নিজে উঠে হাঁটা শুরু করে। আবার আরেকজনকে দেখেছি যে কিনা হাত-পা ভাঙ্গা বলে বসে থাকে, বোবার মত আচরণ করে টাকা নেয়। কিন্তু পরবর্তীতে যখন তাকে তাড়া করা হয় তখন সে ঠিক মত কথাও বলতে পারে আবার হাঁটতেও পারে। আসলে এটাকে অনেকে ব্যবসা হিসেবে নিয়েছে বিধায় অনেক ক্ষেত্রে আসল যারা হতদরিদ্র আছে তাদেরকে বিশ্বাস করতে পারে না।

 28 days ago 

ভিখারিদের নিয়ে আপনার পোস্টের টাইটেলটা একেবারে পারফেক্ট হয়েছে। বর্তমানে ৭০-৮০ শতাংশ ভিক্ষুক অভিনয় করে ভিক্ষা করে থাকে। তারা ইচ্ছে করলে কাজ করে খেতে পারে। কিন্তু তারা পরিশ্রম করতে রাজি না। মানুষের কাছ থেকে টাকা চেয়ে নিতে তাদের খুব ভালো লাগে। আর সেজন্যই এখন মানুষকে ভিক্ষা দিতে ইচ্ছে করে না। আমাদের দেশের প্রায় সব জায়গায় বাটপারি আর বাটপারি। যাইহোক পোস্টটি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

Coin Marketplace

STEEM 0.18
TRX 0.11
JST 0.027
BTC 65423.69
ETH 3429.98
USDT 1.00
SBD 2.31