How much damage the young Turkish revolution did to the Islamic world?

images (3) (1).jpeg
Image Source

Abdul Hamid Khan II, the 33rd Ottoman Sultan and the revered caliph of the Islamic world, was dethroned by the Young Turkish Revolution in 1908. Sultan Abdul Hamid Khan, an emperor who tried his best to save the once mighty Ottoman Empire from collapse. When he ascended the throne in 1976, the Ottoman Empire was plagued by debt and other problems. Trying year after year, he brought the Ottoman Empire to a much better position. At the same time, he never forgot his responsibility to the Muslim community around the world as the caliph of the Islamic world.

১৯০৮ সালে তরুণ তুর্কি বিপ্লবের ফলে সিংহাসনচ্যুৎ হন ৩৩ তম উসমানীয় সুলতান ও ইসলামী জাহানের সম্মানিত খলিফা ২য় আব্দুল হামিদ খান। সিলতান আব্দুল হামিদ খান, যিনি ছিলেন এক সময়ের পরম পরাক্রমশালী উসমানীয় সাম্রাজ্যকে পতনের হাত থেকে রক্ষা করতে আপ্রাণ চেষ্টা করে যাওয়া একজন সম্রাট। ১৯৭৬ সালে যখন তিনি সিংহাসন লাভ করেন তখন উসমানীয় সাম্রাজ্য ছিল ধার দেনা আর নান বিধ সমস্যায় জর্জরিত। বছরের পর বছর চেষ্টা করে তিনি উসমানীয় সাম্রাজ্যকে অনেক ভাল অবস্থানে নিয়ে এসেছিলেন। সেই সাথে ইসলামী জাহানের খলিফা হিসেবে সারা বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতি তার দ্বায়িত্বও তিনি কখনো ভুলে যাননি।

But it was this sultan who was overthrown by a European-educated, secular, so-called freedom-loving young Turkish people through a brutal movement and the establishment of a parliamentary system of government. As a result, the later sultans had no more political power. Their positions were nominal. It was at this time that the extreme suffering of the Ottomans began. Where Sultan Abdul Hamid Khan avoided war and tried to rebuild the dying Ottoman Empire, they later became embroiled in World War I and were defeated.

অথচ এই সুলতানকেই ইউরোপীয় শিক্ষায় শিক্ষিত, সেক্যুলার, তথাকথিত স্বাধীনতা কামী তরুণ তুর্কি জনগোষ্ঠী এক দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে সিংহাসনচ্যুৎ করে এবং সংসদীয় সরকার ব্যবস্থা প্রণয়ন করে। যার ফলে পরবর্তী সুলতান গুলোর আর কোন রাজনৈতিক ক্ষমতা ছিলনা। তাদের পদ ছিল নামমাত্র। ঠিক এসময় থেকেই উসমানীয়দের চরম ভোগান্তি শুরু হয়েছিল। সুলতান আব্দুল হামিদ খান যেখানে যুদ্ধ বিগ্রহ এড়িয়ে চলে মরণোন্মুখ উসমানী সাম্রাজ্যকে আবার দাঁড় করাতে চেষ্টা করেছিলেন, তারাই পরে ১ম বিশ্ব যুদ্ধে নিজেদের জড়য়ে ফেলে এবং পরাজয় বরণ করে।

The Ottoman Empire and the Khilafah system finally collapsed in 1924 after a series of events. The extent to which the Turkish people suffered as a result of the fall of the Ottoman Empire is a matter of debate, but the extent to which Islam fell as a result of the fall of the caliphate is irreparable. The caliphate system that was started by the hand of Abu Bakr (ra) after the death of Hazrat Muhammad (pbuh) lasted for more than 1200 years and finally collapsed in 1924. To this day, the Muslim world has not been able to introduce the Khilafah system, where the caliph acts as the guardian of all Muslims around the world.

পরবর্তীতে নানা ঘটনা প্রবাহের পরে ১৯২৪ সালে চুড়ান্ত ভাবে উসমানীয় সাম্রাজ্য এবং খিলাফত ব্যবস্থার পতন হয়। উসমানীয় রাষ্ট্রের পতনের ফলে তুর্কি জনগণের কতটুকু ক্ষতি হয়েছিল সেটা অনেক আলোচনার বিষয়, তবে খিলাফত ব্যবস্থার পতনের ফলে ইসলাম ধর্মের যত ক্ষতি হয়েছ তা অপূরণীয়। হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর মৃত্যুর পরে আবু বক্কর (রাঃ) এর হাত ধরে যে খিলাফত ব্যবস্থার সূচনা হয়েছিল তা ১২০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে চলার পর ১৯২৪ সালে চূড়ান্ত পতন ঘটে। মুসলিম বিশ্ব আজ পর্যন্ত ও আাবর খিলাফত ব্যবস্থার প্রচলন করতে পারেনি, যেখানে খলিফা পুরো পৃথিবীর সকল মুসলিমের অভিভাবক হিসেবে কাজ করেন।

So we can say that every Muslim has borne the brunt of the damage caused to Islam by the young Turkish revolution.

সুতরাং আমরা বলতেই পারি তরুণ তুর্কি বিপ্লবের ফলে ইসলামের যতটা ক্ষতি হয়েছে তা আজ পর্যন্ত প্রতিটি মুসলিম বয়ে বেড়াচ্ছ।

Coin Marketplace

STEEM 0.31
TRX 0.11
JST 0.033
BTC 64733.60
ETH 3170.85
USDT 1.00
SBD 4.16