Story Of An Ideal Mother In Law Of A Lady

in LifeStyle7 months ago

শাশুড়ির অত্যাচার আর সহ্য হয় না।এমন মানুষও হতে পারে!মাঝে মাঝে মনে হয় উনি শাশুড়ির কাতারেই পরে না।আমি ভেবে পাই না উনি শাশুড়ি হয়ে এইসব কাজ কিভাবে করতে পারে?

listen-4972429_1280.jpg

Image Source

বিয়ে হওয়ার পর থেকে উনার এসব দেখতেছি।শাশুড়ি সম্পর্কে মানুষের নেগেটিভ কথা শুনতে শুনতে এক সময় আমারও মনে হত সব শাশুড়িরা মনে হয় একিরকম হয়।যখন নতুন ছিলাম তখন মনে হত এখন নতুন তাই হয়তো এমন করে কিছুদিন পর আর থাকবে না।

কিন্তু আমি ভুল ছিলাম। যতই পুরানো হইছি তার আদর,ভালোবাসা তত বেশি পাইছি। শুরু থেকেই একদম বউয়ের মত দেখে নাই।মেয়ের মত করেই রাখছে।এটা মানতে হবে মা তো মা ই তবে আমার শাশুড়ি মায়ের চেয়ে কম না। এই পর্যন্ত উনি একদিনও রান্না করতে দেয় নাই।বলে আমি না থাকলে তো তোমরাই করবা এখন নাহয় আমি ই করি।পেঁয়াজ,আলু কুচি করলে আঙ্গুলে কাপড় বেঁধে দিবে যেন দাগ না হয়।শাক-সবজি কাটতে গিয়ে একদিন হাত কেটে ফেলছি তারপর থেকে শাক-সবজিও কাটতে দিতে চায় না।আমি জোর করে কাটি।এলাকায় একদল কুটনি কমিটি আছে।একদিন সকালে গিয়ে শুনতেছি ওরা শাশুড়িকে বলতেছে দুই ছেলের বউ ঘরে থাকতে আপনাকেই যদি রান্না করতে হয়,সব কাজ করতে হয় তাহলে ছেলে বিয়ে করাইয়া লাভ কি।শাশুড়ির উত্তর শুনে উনার ব্যাপারে শাশুড়ি নামক সম্পর্কের সব ধারণা মুছে গেল।উত্তরটা ছিল "আমি ছেলেদের বিয়ে করাইয়া ঘরে বউ আনছি,বান্দি না।ছেলেদের সুখের জন্য বিয়ে করাইছি আমার কাজ করার জন্য না।আমি যতদিন পারি করবো তারপর ওদের সংসার ওদেরকেই তো দেখতে হবে।আমি অসুস্থ থাকলে তো আমার বউরাই করে তখন তো আর আপনারা করতে আসেন না"।

শাশুড়ি সকালে আমরা উঠার আগেই অর্ধেক কাজ শেষ করে ফেলে।আমরা দুই বউ একজনকেও ডাক দেয় না।রান্না শেষ হলে খাওয়ার জন্য ডাকে।যখন যেটা খাইতে মন চায় শাশুড়িকে বললেই রান্না করে দেয়।আমরা একসাথে বসে টিভি দেখি,গল্প করি।আমরা দুই বউ আসলে বউ না বাড়ির মেয়ের মত থাকি আর আমাদের শাশুড়ি মায়ের মত আচরণ করে।আমরা স্বামীর সাথে ঝগড়া লাগলে ছেলেদেরকে বুঝায় ওরা সব ছেড়ে আসছে, ওদের দুঃখ,রাগ তোদেরকেই তো বুঝতে হবে।এটার সুযোগ নিয়ে জামাই একটু উল্টাপাল্টা করলেই বলি আম্মার(শাশুড়িকে আম্মা ডাকি) কাছে বিচার দিব কিন্তু ব্যাস সব ঠান্ডা হয়ে যায়।কিছুদিন যাবত অসুস্থ শাশুড়ি প্রতিদিন মগে দুধ গরম করে এনে দিয়ে যাবে।পছন্দের খাবারগুলো রান্না করবে আর ভালোবাসা তো আছেই।আমি মাঝে মাঝে উনার হাত-পা টিপে দেই,মাথায় তেল দিয়ে দেই।আসলে শাশুড়ি যখন এমন হয় তখন মন থেকে তার সেবা করার ইচ্ছা আসে।

তার প্রতি মায়ের মত ভালোবাসা কাজ করে। বউ যেমনি হোক না কেন একজন শাশুড়ি ই পারে বউকে বাড়ির মেয়ের মত গড়ে তুলতে নিজের আদর-ভালোবাসা আর ভালো ব্যবহারের মাধ্যমে।বউকে যদি শাশুড়িরা একটু আদর করে,বুঝার চেষ্টা করে তাহলেই কিন্তু বউ-শাশুড়ির সম্পর্ক মা-মেয়ের মত হয়ে যায়।অবশেষে সবকিছুর জন্য আলহামদুলিল্লাহ।
.......
.....
...

কলমে: লিমা আপু